রাঙ্গামাটিতে সাংবাদিক ফজলে এলাহীর বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

শ্যামল রুদ্র, খাগড়াছড়ি:
দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রাম ও পাহাড়টোয়েন্টিফোর সম্পাদক ফজলে এলাহী’র বিরুদ্ধে হয়রানিমূলক আইনগত উদ্যোগ নেওয়ার প্রতিবাদে রাঙামাটিতে মানববন্ধন ও সংহতি সমাবেশ করেছে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার কয়েক শ মানুষ।

মঙ্গলবার সকাল সাড়ে দশটায় শহরের জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনের চত্বরে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ যুব ইউনিয়নের রাঙামাটি জেলা সভাপতিজিসান বখতেয়ার, জেলা যুবদলের সাধারন সম্পাদক আবু সাদাত মো. সায়েম, রাঙামাটি অনলাইন প্রেসক্লাবের সভাপতি নির্মল বড়–য়া মিলন,আলোকিত রাঙামাটির রাজেশ দাশ,রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা,রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এসএম শামসুল আলম,লংগদু প্রেসক্লাবের আরমান খান,সংস্কৃতিকর্মী ও গতি থিয়েটারের পরিচালক মনি পাহাড়ী,রাঙামাটি জার্নালিস্ট নেটওয়ার্কের সভাপতি শান্তিময় চাকমা,রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাবেক সম্পাদক মো. ইলিয়াস,প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে।

সাংবাদিক সৈকত বাবু ও সাইফুল বিন হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা মামলা দায়ের প্রচেষ্টাকে গণমাধ্যমের কন্ঠরোধের অপপ্রয়াস উল্লেখ করে বলেন,স্বাধীন সাংবাদিকতাকে বাধাগ্রস্ত করার মাধ্যমে সংবাদকর্মীদের শৃংখলিত করার চেষ্টার অংশ হিসেবেই মামলা ও হয়রানি করা হচ্ছে। তারা অবিলম্বে হয়রানিমূলক মামলার চেষ্টা থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানান।

মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে সংহতি জানান-রিজার্ভবাজার ব্যবসায়ি কল্যাণ সমিতি,বনরূপা ব্যবসায়ি সমিতি, একতা শ্রমিক কল্যাণ সমিতি,চিড়াই কাঠ ব্যবসায়ি সমিতি, পার্বত্য চট্টগ্রাম ডিবেট ফেডারেশন, বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ ফাউন্ডেশন, ওয়াল্ড পীস্,হৃদয়ে বাঘাইছড়ি, হিলোর ভালেদী,নব উদ্যোগ সংঘ,নির্ঝর সংঘ,মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড,লাইফ লাইন,গতি থিয়েটার,রাঙাবি থিয়েটার,অনলাইন সংবাদপত্র রাঙাবার্তা,গিরিসংবাদ,আলোকিত রাঙামাটি,সিএইচটি মিডিয়া,সিএইচটি ভয়েস,সিএইচটি টুডে,ক্যাম্পাসবার্তা,হিলবিডিটোয়েন্টিফোর ডট কম, হিলর সংবাদ বাংলাদেশ যুব ইউনিয়ন, ছাত্র ইউনিয়ন, বাংলাদেশের কমিউনিষ্ট পার্টি,জাতীয়তাবাদী যুবদল,জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল,স্বেচ্ছাসেবক দল,জাসাস,ইসলামী ছাত্রসেনা,যুবসেনা,ইসলামী ফ্রন্ট,বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টিসহ বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক রাজনৈতিক ও ক্রীড়া সংগঠন।

সমাবেশে উপস্থিত হয়ে সংহতি জানানো সাংবাদিকদের মধ্যে ছিলেন প্রবীন সাংবাদিক ও দৈনিক সংবাদের পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধি সুনীল কান্তি দে, রাঙামাটি প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি এসএম শামসুল আলম,সাবেক সাধারন সম্পাদক ও দৈনিক জনকন্ঠ প্রতিনিধি মোহাম্মদ আলী, সাবেক সম্পাদক মো. ইলিয়াছ,দৈনিক যুগান্তরের প্রতিনিধি ও রাঙামাটি রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি সুশীল প্রসাদ চাকমা, যমুনা টেলিভিশনের প্রতিনিধি ও রিপোর্টার্স ইউনিটির সাধারন সম্পাদক ফজলুর রহমান রাজন দৈনিক সমকাল ও একুশে টিভির প্রতিনিধি সত্রং চাকমা, দৈনিক পূর্বদেশের প্রতিনিধি মো. কামাল উদ্দিন, বৈশাখী টেলিভিশনের প্রতিনিধি কামাল হোসেন, নিউ এজ এর প্রতিনিধি ও জার্নালিষ্ট নেটওয়ার্কের সভাপতি শান্তিময় চাকমা,বাংলাভিশন প্রতিনিধি ও রাঙামাটি সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি নন্দন দেবনাথ, দৈনিক ইত্তেফাকের জসীমউদ্দীন,সিএইচটিভয়েস সম্পাদক কামালউদ্দিন,নিউজবাংলার প্রতিনিধি সুপ্রিয় চাকমা শুভ,ডেইলি অবজারভারের ইমতিয়াজ ইমন,বিটিভির সোহরাওয়ার্দী সাব্বির, সময় টেলিভিশনের হেফাজত সবুজ,আরটিভির ইয়াছিন রানা সোহেল,মাছরাঙা টিভির শংকর হোড়,দীপ্ত টিভির সৈকত বাবু,চ্যানেল টোয়েন্টিফোর ও বাংলাট্রিবিউনের জিয়াউল জিয়া,বাংলা টিভির মিশু দে,চ্যানেল সিক্স’র তৌসিফ মান্নান,সারাবাংলা ডট ও বণিকবার্তার প্রান্ত রনি,দৈনিক পার্বত্য চট্টগ্রামের সাইফুল বিন হাসান, লংগদু প্রেসক্লাবের আরমান খান, কাউখালী প্রেসক্লাবের জয়নাল আবেদিন,বাঘাইছড়ি প্রেসক্লাবের আনোয়ার হোসেন এবং দৈনিক রাঙামাটির ব্যবস্থাপনা সম্পাদক ঝিমি কামাল।

রাঙামাটি পৌরসভার সাবেক মেয়র সাইফুল ইসলাম ভূট্টো,দুপ্রক জেলা সেক্রেটারি ললিত চন্দ্র চাকমা, বর্তমান কাউন্সিলর হেলালউদ্দিন,মিজানুর রহমান বাবু,বিল্লাল হোসেন টিটু, সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল মালেক,জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম তালুকদার,জেলা জাসাসের সাধারন সম্পাদক কামালউদ্দিন, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির নেত্রী জুঁই চাকমা, রাঙামাটি জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক বেলাল হোসেন সাকু, পৌর যুবদলের সভাপতি সিরাজুল মোস্তফা,রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

গণমাধ্যমের কন্ঠরোধের অপচেষ্টা’র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তারা বলেন, ‘সাংবাদিকতার নিয়ম ও নৈতিকতা মেনেই সংবাদ পরিবেশ করা সত্ত্বেও সাংবাদিকদের হয়রানির চেষ্টা খুবই দুঃখজনক। এইসব অসুস্থ ও নোংরা প্রবণতা বন্ধ না হলে সৎ সাংবাদিকতা প্রশ্নের মুখে পড়বে।’

প্রসঙ্গত,রাঙামাটির সাবেক সংরক্ষিত সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু এবং তার কন্যা নাজনীন আনোয়ার প্রকাশিত সংবাদের প্রেক্ষিতে ফজলে এলাহীর বিরুদ্ধে থানায় পৃথক দুটি অভিযোগ দায়ের করেন।পুলিশ অভিযোগ দুটি তদন্তের অনুমতি চাইলে আদালত সেই অনুমতি প্রদান করেছেন।